হলুদ বৃষ্টিপাত কে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল বাগনানে

নিজস্ব সংবাদদাতা : হলুদ বৃষ্টিপাত কে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল বাগনানের সাবসিট গ্রাম পঞ্চায়েতের পাতিনান এলাকায়। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার দুদিন বেলা দশটা নাগাদ এই হলুদ বৃষ্টি হয় বলে স্থানীয়দের বক্তব্য। তারা বিষয়টি সাবসিট গ্রাম পঞ্চায়েতে ও বাগনান ১ ব্লক প্রশাসনকে জানান।

ব্লক প্রশাসনের লোক এলাকায় আসেন। লোকেদের সঙ্গে তারা কথা বলেন ও নমুনা সংগ্রহ করেন। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন বৃষ্টি বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। সামান্য কিছুক্ষণ হয়। দেখা যায় কারো গায়ে পড়েছে এই হলুদ বৃষ্টির ফোঁটা। জামাকাপড়ে হলুদ ফোটার দাগ পড়ে। বাড়ির ছাদ, ত্রিপলের উপর একই ধরনের হলুদ দাগ লোকেরা দেখেন। বৃহস্পতিবার সকালেই প্রথম এই হলুদ বৃষ্টি হয়।

প্রাথমিকভাবে লোকেরা হকচকিয়ে যান। অনেকে মনে করেন দূষণের কারণেই এমনটা হতে পারে। আবার আজ শুক্রবারও তারা ওই সময়েই হলুদ বৃষ্টি হতে দেখেন। শুক্রবারও একই ঘটনা হওয়ায় এলাকায় হৈচৈ পড়ে যায়। ছড়ায় আতঙ্কও। পাতিনানের বাসিন্দা বংশী কাঞ্জি বলেন, ছাদে কাপড় মেলা ছিল। কাপড় তুলতে গিয়ে দেখি কাপড়ে হলুদ ফোঁটা ফোঁটা দাগ।

পরে সেই দাগ বাড়ির ছাদে, গাছের পাতায় দেখতে পায় আমরা। তবে দেখা যায় সেই দাগে হাত দিলে বা ধুলে উঠে যাচ্ছে। হাত দিয়ে ঘষলে গুঁড়ো গুঁড়ো হয়ে উঠে আসছে। গায়ে ফোঁটা পড়লেও কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি বা গাছের পাতাও শুকিয়ে যেতে দেখা যায়নি। আমরা বিষয়টি ব্লক প্রশাসনকে জানিয়েছি। তারাও এলাকা পরিদর্শন করেছেন। নমুনা সংগ্রহ করেছেন।

সাবসিট গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সাদ্দাম হোসেন বলেন, আমাদের গ্রাম পঞ্চায়েতের সাবসিট এলাকায় মূলত এই হলুদ বৃষ্টি হয়েছে। কেন এমনটা হলে বুঝতে পারছি না। ব্লক প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।বাগনান ১ নম্বর ব্লকের বিডিও সত্যজিৎ বিশ্বাস বলেন সংগ্রিহীত নমুনা পরিবেশ দফতর ও দূষণ নিয়ন্ত্রণ দফতরে জানান হবে। তাদের নির্দেশ অনুযায়ী প্রয়োজন ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা