সিসিটিভিতেই রহস্যফাঁস! হাওড়ায় বস্তাবন্দী দেহ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩

নিজস্ব সংবাদদাতা : শনিবার সকালে হাওড়ার গোলাবাড়ি থানার চালপট্টি গঙ্গার ঘাটে উদ্ধার হয় যুবকের বস্তাবন্দি দেহ। ২৪ ঘন্টার মধ্যেউ খুনের কিনারা করে ফেলল। ঘটনার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই তিনজনকে গ্রেফতার করেছে হাওড়া সিটি পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃতের নাম শ্রমন সিং(৪০)। মৃত শ্রমন ঘুসুড়ির কুলি লেনের বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ত্রিকোণ প্রেমের জেরেই এই ঘটনা। সূত্রের খবর, শ্রমনের স্ত্রী বছর বত্রিশের পিঙ্কির সাথে বছরখানেক আগে হাওড়ার গোলাবাড়ি থানার আমন গুপ্তার সাথে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এমনকি শ্রমণকে ছেড়ে আমনকে বিয়ে করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন পিঙ্কি। জানা গেছে, সেই কথা জানতে পেরেই সংসারে নিয়মিত অশান্তি শুরু করে শ্রমন। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, এই ত্রিকোণ সম্পর্কের জেরেই প্রেমিক আমানকে সাথে নিয়ে গত পয়লা জানুয়ারী রাতে শ্রমনকে ঘুসুড়ির বাড়িতেই শ্বাসরোধ করে খুন করে পিঙ্কি।

ভোররাতে একটি বাইকে করে আমান ও পিঙ্কি বস্তাবন্দী দেহটি নিয়ে গঙ্গার নির্জন ঘাটে ফেলে যায়। পুলিশ জানিয়েছে, তারা ভেবেছিল জোয়ারে দেহবন্দি বস্তাটি ভেসে যাবে। কিন্তু আদপে তা হয়নি। মূলত সিসিটিভি ফুটেজকে সামনে রেখেই ঘটনার দ্রুত কিনাড়া করল হাওড়া সিটি পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এমনকি এই খুনে মাকে নাকি সাহায্য করেছে পিঙ্কির নাবালিকা মেয়ে।

রবিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে হাওড়া সিটি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (উত্তর) অনুপম সিং জানান, এই ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ মৃত শ্রমন সিংয়ের স্ত্রী পিঙ্কি, তার নাবালিকা মেয়ে ও পিঙ্কির প্রেমিক আমান গুপ্তাকে গ্রেপ্তার করেছে। আজ সোমবার পিঙ্কি ও আমনকে হাওড়া কোর্টে, পিঙ্কির নাবালিকা কন্যাকে জুভেনাইল কোর্টে তোলা হবে বলে জানা গেছে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা