শ্যামপুরে বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কলেজ পড়ুয়া যুবকের মৃত্যু, এলাকায় শোকের ছায়া

নিজস্ব সংবাদদাতা : বাবাকে মৃত্যুমুখ থেকে বাঁচাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণ গেল এক কলেজ পড়ুয়ার। ঘটনাটি ঘটেছে গ্রামীণ হাওড়ার শ্যামপুরে। জানা গেছে, মৃত যুবকের নাম ইলাবন্ত মান্না (২০)। ইলাবন্ত শ্যামপুর সিদ্ধেশ্বরী কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের পড়ুয়া।

সূত্রের খবর, শ্যামপুরের বাসিন্দা উত্তম মান্নার দোতলা বাড়ির ছাদে নির্মাণ কাজ চলছিল। উত্তম বাবু পেশায় অবসরপ্রাপ্ত পশু চিকিৎসক।জানা গেছে, বুধবার সকালে উত্তম মান্না ও তাঁর কলেজ পড়ুয়া ছেলে ইলাবন্ত বাড়ির ছাদে ওঠেন। তাঁদের বাড়ির পাশ দিয়েই ১১ হাজার ভোল্টের খোলা বৈদ্যুতিক লাইন গেছে।

ছাদে জামাকাপড় শুকনো দেওয়ার জন্য লোহার তার লাগানো ছিল। উত্তম বাবু সেই তার খুলছিলেন। ছাদের এক প্রান্তের তার খোলার পরেই তাঁর হাত থেকে আচমকাই তারের অন্য অংশ ছিটকে গিয়ে বাড়ি লাগোয়া ১১ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের লাইনে পড়ে।

সাথে সাথেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন উত্তম বাবু। বাবাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসে ইলাবন্ত। দু’জনেই বিদুৎস্পৃষ্ট হয়ে ছাদের মধ্যে পড়ে যান। তাঁদের চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ও প্রতিবেশীরা।

গুরুতর আহত অবস্থায় দু’জনকে উদ্ধার করে স্থানীয় কমলপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক ইলাবন্তকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় উত্তম মান্নাকে উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। পুলিশ মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ইলাবন্তের মৃত্যুতে এলাকাজুড়ে শোকের ছায়া।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা