উলুবেড়িয়া উপ-সংশোধনাগার চত্বরে গাছ কাটার অভিযোগ! পরিবেশকর্মীদের প্রচেষ্টায় রক্ষা পেল নিমগাছ

নিজস্ব সংবাদদাতা : পরিবেশকর্মীদের প্রচেষ্টায় রক্ষা পেল একটি আস্ত নিমগাছ। উলুবেড়িয়া উপ-সংশোধনাগার সংলগ্ন একটি প্রাচীন নিমগাছে কোপ মারা হচ্ছিল বলে অভিযোগ। এই ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে আসেন ‘খোলামন’ নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা। তাঁরা সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি উলুবেড়িয়ার মহকুমাশাসক অরণ্য বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানান। অরণ্য বাবু দ্রুত গাছ কাটার কাজ বন্ধের নির্দেশ দেন বলে জানা গেছে।

সূত্রের খবর, আম্ফানে উলুবেড়িয়া শহরের বিভিন্ন জায়গায় বহু প্রাচীন গাছ পড়ে গিয়েছে। উলুবেড়িয়া উপ-সংশোধনাগার চত্বরেও একাধিক গাছ পড়ে যায়। তবে আস্ফানের দানবীয় তান্ডবকে উপেক্ষা করে সমহিমায় দাঁড়িয়েছিল এই প্রাচীন নিম গাছটি। পরিবেশকর্মীদের অভিযোগ, অহেতুক ভাবেই গাছটিকে কাটা হচ্ছিল। আর তা জানতে পেরেই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন উলুবেড়িয়া পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান, বিশিষ্ট সমাজকর্মী অজয় দাস, শিক্ষক স্বপন চেটেল, দীপক দাসের মতো পরিবেশ সচেতন নাগরিকরা।

গাছে কোপ মারা বন্ধ করে দিয়েই তাঁরা পৌঁছে যান মহকুমাশাসকের দরবারে। মহকুমাশাসককে বিষয়টি জানাতেই তিনি উপ-সংশোধনাগারের জেলারকে ডেকে পাঠান। বন্ধ হয় গাছে কোপ মারার কাজ। বিশিষ্ট সমাজকর্মী অজয় দাসের অভিযোগ, “এই প্রাচীন নিম গাছটি সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে কাটা হয়েছে। তৎক্ষণাৎ আমরা উপস্থিত না হলে পুরো গাছটিই কাটা হতো। যেভাবে কাটা হয়েছে তাতে গাছটি মারা যেতে পারে।” তিনি আরও বলেন, “বন দপ্তর ব্যবস্থা না নিলে আমরা বিষয়টি নিয়ে পরিবেশ আদালতে যাবার কথা চিন্তা ভাবনা করছি।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা