তৃনমূল ও বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত বাগনান

নিজস্ব সংবাদদাতা : তৃনমূল ও বিজেপি’র সংঘর্ষে উত্তপ্ত বাগনানের ওড়ফুলির রানা এলাকা। একে অন্যের বিরুদ্ধে ভাঙচুর ও‌ বোমাবাজির অভিযোগ দুই পক্ষের। জানা গেছে শুক্রবার রাতে অশান্ত হয়ে ওঠে এলাকা। মুহুর্মুহু বোমাবাজিতে কেঁপে ওঠে গোটা এলাকা। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে স্থানীয় বিজেপি নেতা তৈমুর মোল্লা মাস তিনেক আগে তৃনমূল ছেড়ে বি জে পি তে‌ যোগদান করেন। তার সাথে দল বদলায় তার অনুগামীরাও। বিজেপি’র অভিযোগ গতকাল রাতে ‌রানা এলাকার বিজেপি সমর্থকদের বাড়িতে হামলা চালায় তৃনমূলের লোকজন।

তাদের বেশ কয়েকজন সমর্থকের বাড়িতে ভাঙচুর করে তারা। পাশাপাশি ব্যাপক বোমাবাজিও করা হয় এলাকায়। তৃনমূলের অভিযোগ বিজেপি আশ্রিত দূস্কৃতিরা এই এলাকার তাদের সমর্থকদের বাড়িতে হামলা করে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে। বোমার আঘাতে তাদের তিন জন সমর্থক গুরুতর আহত হয়েছে বলেও তৃনমূলের তরফে দাবি করা হয়েছে। তৃনমূলের তরফ থেকে ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বাইশ জন বিজেপি সমর্থকের বিরুদ্ধে ‌বাগনান থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। স্থানীয় বিজেপি নেতা তৈমুর মোল্লা বলেন আমার নেতৃত্বে এলাকার বহু মানুষ তৃনমূল ছেড়ে বিজেপি তে যোগদান করেছে।

সেই কারণেই তৃনমূল পায়ের তলার জমি হারিয়ে এই ধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে। বাগনানের‌ বিধায়ক অরুনাভ সেন বলেন তৃনমূল থেকে বিজেপি তে যোগ দেওয়া কর্মীরা আবার তৃনমূলে ফিরে আসছে। সেই কারণেই এলাকাকে উত্তপ্ত করতে বিজেপি এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এই ঘটনায় তাদের তিন জন সমর্থক গুরুতর আহত হয়েছে বলেও তিনি জানান। তিনি আরো বলেন আগামী ২১শে সেপ্টেম্বর এই এলাকায় তারা প্রতিবাদ সভা করবেন। হাওড়া গ্রামীণ জেলার বিজেপি সভাপতি অনুপম মল্লিক বলেন তৈমুরের নেতৃত্বে দলে দলে মানুষ তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করছে। সেই ভয়ে তৃনমূল এলাকার স্ট্রীট লাইট ভেঙে এলাকা অন্ধকার করে দিয়ে পুলিশের সামনে এলাকার বি জে পি সমর্থকদের বাড়িতে ভাঙচুর ও বোমাবাজি করেছে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা