ইয়াস বিধ্বস্ত সুন্দরবনের পাশে হাওড়ার একাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন

পৃথ্বীশরাজ কুন্তী : ইয়াস ও কোটালের জোড়া আঘাতে কার্যত দিশেহারা সুন্দরবনের বহু দ্বীপাঞ্চল। সেরকমই এক প্রত্যন্ত দ্বীপ কুমিরমাড়ি। মূল ভূখণ্ড থেকে বহু দূরে বাংলাদেশ লাগোয়া ভারতীয় সুন্দরবনের একদম শেষ প্রান্তে কুমিরমাড়ির অবস্থান। ইয়াস ও কোটালের জলোচ্ছাসে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত কুমিরমাড়ি।

এবার কুমিরমাড়ির বিপর্যস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াল ব্লাড ডোনার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ, হাওড়া এডভেঞ্চার স্পোর্টস এসোসিয়েশন ও বর্ণপরিচয় নামক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। সম্প্রতি হাওড়া থেকে খাদ্যসামগ্রী ও শিক্ষাসামগ্রী নিয়ে এই প্রত্যন্ত দ্বীপে পৌঁছে গিয়েছিলেন শতাব্দী, অভয়, আক্তারুল, চয়নরা।

তাঁরা দ্বীপের প্রায় ৩০০ মানুষের হাতে খাদ্যসামগ্রী, পোশাক ও পড়ুয়াদের হাতে শিক্ষাসামগ্রী তুলে দেন। এই কর্মসূচির অন্যতম উদ্যোক্তা শাশ্বত পাড়ুই, উজ্জ্বল দাসরা জানান, সংবাদমাধ্যমের সৌজন্যে আমরা সুন্দরবনের মানুষের বর্তমান অবস্থা সকলেই কমবেশি জানি। এবার তা খুব কাছ থেকে প্রত্যক্ষ করলাম।

তাঁরা বলেন, নদীর দু-পাড়ে অজস্র ঘরবাড়ি তলিয়ে গেছে। খাবার নেই, ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া সামগ্রীও জলে ভেসে গেছে। এই দুঃসময়ে আমরা সাধ্যমতো এদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করলাম।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা