উলুবেড়িয়ায় করোনা রোগীর মৃতদেহ বদলে দেওয়ার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ, ক্ষুব্ধ মৃতের পরিবার

নিজস্ব সংবাদদাতা : দেশজুড়ে আনলক পর্ব শুরু হলেও প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। রাতদিন এক করে চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী,নার্সরা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। যার ফলে প্রতিদিন বহু মানুষ সুস্থও হয়ে উঠছেন।

তবে এবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে করোনা রোগীর মৃতদেহ বদলে দেওয়ার চাঞ্চল্য অভিযোগ তুলল মৃতের পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে গ্রামীণ হাওড়ার ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন কোভিড হাসপাতালে।

সূত্রের খবর, হার্টের সমস্যা নিয়ে কোলকাতার মানিকতলা ই.এস.আই হাসপাতালে গত ৩ রা সেপ্টেম্বর থেকে ভর্তি ছিলেন হাওড়ার শিবপুরের বাসিন্দা আখতার আলি (৪৪)। সেখানে ওই ব্যক্তির দেহে করোনার উপস্থিতি ধরা পড়ে। তাঁকে গত ৫ ই সেপ্টেম্বর উলুবেড়িয়ার সঞ্জীবন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সঞ্জীবনে তিনি গত ৭ তারিখে মারা যান বলে জানা গেছে। মৃতের পরিবারের অভিযোগ, গত সোমবার রাতে হাসপাতালের তরফে তাদের জানানো হয় যে তাদের রোগী মারা গেছে। আজ সকালে রোগীর পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালে এলে তাদের পচাগলা মৃতদেহ দেখানো হয় বলে অভিযোগ। মৃতদেহটি তাদের নয় এই দাবি নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন মৃতের আত্মীয়রা।

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালের ডিরেক্টর চিকিৎসক শুভাশিস মৈত্র জানান, “ওই রোগী কোনোভাবেই করোনায় মারা যাননি। হাসপাতালে আনার পর ওনার সেকেন্ড মাসিভ হার্ট অ্যাটাক হয়। মৃত্যুর প্রায় দীর্ঘ ১৬ ঘন্টা পর মৃতের বাড়ির লোকজন মৃতদেহটি দেখলেন। থ্রম্বোলাইজ করার জন্যই মৃতদেহটিকে এরকম দেখাচ্ছে।” শুভাশিস মৈত্রের দাবি কন, “মৃতদেহ ওই রোগীরই।দরকারে পোস্টমর্টেম ডিএনএ টেস্ট করতে পারে রোগীর পরিবার।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা