দীর্ঘদিনের দাবিপূরণ! গ্রামীণ হাওড়ায় প্রথম বৈদ্যুতিক চুল্লির উদ্বোধন, পাশাপাশি উলুবেড়িয়ায় আনা হল ট্রমা কেয়ার অ্যাম্বুলান্স

নিজস্ব সংবাদদাতা : গ্রামীণ হাওড়ার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবিপূরণ হল। দীর্ঘ অপেক্ষার পর গতকালই আনুষ্ঠানিকভাবে খুলে দেওয়া গ্রামীণ হাওড়ার প্রথম ইলেকট্রিক চুল্লি ‘বৈতরণী’। উলুবেড়িয়া পৌরসভার ১০ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ বাউরিয়ার সিন্দুরিয়া মহলে ১ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে উলুবেড়িয়া পৌরসভা এই ইলেকট্রিক চুল্লিটি নির্মাণ করেছে বলে জানা গেছে।

এতদিন গ্রামীণ হাওড়ার বুকে বৈদ্যুতিক চুল্লি না থাকায় দ্রুত মৃতদেহ সৎকারে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হতো বিস্তীর্ণ অঞ্চলের মানুষকে। ‘বৈতরনী’ চালু হওয়ার সাথে সাথে সেই সমস্যা অনেকটাই মিটবে বলে আশাবাদী সাধারণ মানুষ। এর ফলে উলুবেড়িয়া পৌরসভা এলাকার মানুষের পাশাপাশি উপকৃত হবেন গ্রামীণ ও সদর হাওড়ার বহু মানুষ।

‘বৈতরনী’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন উলুবেড়িয়া দক্ষিণের বিধায়ক পুলক রায়, উলুবেড়িয়া পূর্বের বিধায়ক ইদ্রিস আলি, উলুবেড়িয়ার পৌরসভার প্রশাসক অভয় দাস সহ অন্যান্যরা। এর পাশাপাশি, গতকাল উলুবেড়িয়া পৌরসভায় ট্রমা কেয়ার অ্যাম্বুলেন্সের উদ্বোধন করেন বিধায়ক ইদ্রিস আলি ও বিধায়ক পুলক রায়।

জানা গেছে, ইদ্রিস আলির বিধায়ক তহবিলের থেকে ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এই অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্সটি কেনা হয়েছে। বিধায়ক ইদ্রিস আলি ও উলুবেড়িয়া পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান অভয় দাস বলেন, “এই অ্যাম্বুলেন্সে আইসিইউয়ের (যেমন ডাক্তার, নার্স, অক্সিজেন, এয়ার কন্ডিশেন) সব সুবিধাই আছে। সরকারি উদ্যোগে এই ধরণের অ্যাম্বুলান্স এই প্রথম আনা হল উলুবেড়িয়ায়।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা