দীর্ঘদিন ধরে শয্যাশায়ী! ‘স্বাস্থ্যসাথী’ কার্ড নিয়ে এগিয়ে এলো আমতার উদং-১ পঞ্চায়েত

নিজস্ব সংবাদদাতা : গ্রামীণ হাওড়ার আমতা-১ ব্লকের উদং-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা কৌশিক পাত্র। দীর্ঘ প্রায় দ’শ বছর ধরে দুরারোগ্য আর্থারাইটিসে আক্রান্ত। বছর চল্লিশের কৌশিক দীর্ঘ প্রায় একবছর ধরে শয্যাশায়ী। চিকিৎসার পিছনে ইতিমধ্যেই চলে গেছে বিপুল পরিমাণ অর্থ। তাতেও সেভাবে সুরাহা মেলেনি। এখনও চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন প্রচুর পরিমাণ অর্থ।

কিন্তু, তাঁর পরিবারের পক্ষে তা বহন করা কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই খবর জানার পরই উদ্যোগী হয়ে এগিয়ে এলো উদং-১ গ্রাম পঞ্চায়েত। পঞ্চায়েতের উদ্যোগে বুধবার ব্লক প্রশাসনের কর্মীরা কৌশিক পাত্রের বাড়িতে গিয়ে তাঁর ‘স্বাস্থ্যসাথী’ কার্ডের ছবি তোলেন। তারপর কৌশিক পাত্রের হাতে ‘স্বাস্থ্যসাথী’ কার্ড তুলে দেন উদং-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান জয়ন্তী দাস। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপ-প্রধান সুনীল পাত্র, স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য সৌমেন হাইত, শিক্ষক অরুণ খাঁ’রা।

স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য সৌমেন হাইত জানান, “আমরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেখানো পথের পথিক। উদং-১ গ্রাম পঞ্চায়েত উন্নয়ন ও সামাজিক পরিষেবা পদানের ক্ষেত্রে কোনো রং কিমবা দল দেখেনা। মানুষের সেবাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যেই আমরা ৯৭ নং বুথের বাসিন্দা কৌশিক বাবুর বাড়িতে গিয়ে তাঁর হাতে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড তুলে দিয়েছি।”

বাড়িতে বসে হাতে ‘স্বাস্থ্যসাথী’ কার্ড পাওয়ায় স্বভাবতই খুশি কৌশিক। তাঁর কথায়,”আমার চিকিৎসার জন্য বিপুল অর্থের প্রয়োজন। এমতাবস্থায় মুখ্যমন্ত্রীর এহেন মানবিক উদ্যোগ আমার কাছে সত্যিই খুব প্রাসঙ্গিক।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা