শ্যামপুরে গভীর রাতে উধাও সদ্যোজাত শিশুকন্যা, পুকুর থেকে উদ্ধার নিথর দেহ, এলাকায় চাঞ্চল্য

নিজস্ব সংবাদদাতা : গভীর রাতে মায়ের পাশ থেকে ১৫ দিনের সদ্যোজাত কন্যাসন্তান উধাও! বাড়ির পাশেই একটি পুকুর থেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার হয় শিশুটির দেহ। মঙ্গলবার এই ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল গ্রামীণ হাওড়ার শ্যামপুরের মর্শাল তেঁতুলতলা এলাকায়। পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত শিশুকন্যার নাম আরাধ্যা মাঝি। সূত্রের খবর, আরাধ্যার বাবা সায়ক মাঝি ওরফে বুবুনের সাথে ফেসবুক সূত্রে পরিচয় ঘটে শিলিগুড়ির সোনিয়ার সাথে। তারপর বছর দেড়েক আগে দু’জন বৈবাহিক বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের পর সায়ক ও সোনিয়া কোলকাতাতেই থাকতেন। যদিও লকডাউনের জেরে সায়ক স্ত্রী’কে নিয়ে শ্যামপুরে চলে আসেন। দিন পনেরক আগে সোনিয়া একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। সন্তানের নাম রাখা হয় আরাধ্যা।

পরিবার সূত্রে খবর, অন্যান্য দিনের মতোই বাবা- মা’য়ের সাথেই সোমবার রাতেও শুয়েছিল ছোট্ট আরাধ্যা। ভোর তিনটে নাগাদ সায়ক ও সোনিয়া দেখেন বিছানা থেকে উধাও সদ্যোজাত সন্তান। সঙ্গে সঙ্গে চারিদিকে খোঁজাখুঁজি শুরু হয় পরিবারের তরফে। প্রতিবেশীরাও খোঁজাখুঁজিতে হাত লাগান। ভোরের আলো ফুটলে সদ্যোজাত শিশুটির নিথর দেহ বাড়ির পাশের একটি পুকুরে ভাসতে দেখেন প্রতিবেশীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে শ্যামপুর থানার পুলিশ। পুলিশ মৃতদেহটিকে ময়নাতদন্তে জন্য পাঠানোর পাশাপাশি একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। কীভাবে এধরণের ঘটল তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। জানা গেছে, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সদ্যোজাতের বাবা ও দাদুকে আটক করেছে শ্যামপুর থানার পুলিশ। সদ্যোজাত শিশুকন্যার এই মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ আত্মীয় থেকে প্রতিবেশী সকলেই।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা