অক্সিজেন সিলিন্ডারের আকাল! বিকল্প পদ্ধতিতে দিশা দেখানোর পথে উলুবেড়িয়ার হাসপাতাল

নিজস্ব সংবাদদাতা : দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। তার সাথে সাথে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংকট ক্রমশ প্রকট হচ্ছে। অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে কালোবাজারি চরমে। এরকমই এক সংকটময় পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার ব্যবহার না করে সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর দিয়ে করোনা রোগীর উপর পরীক্ষামূলকভাবে অক্সিজেন দেওয়া শুরু করল গ্রামীণ হাওড়ার উলুবেড়িয়ার সঞ্জীবন হাসপাতাল।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহারের জন্য ইতিমধ্যেই দুর্গাপুর এনআইটির তৈরি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর সঞ্জীবন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার এক করোনা রোগীকে অক্সিজেন দিয়ে পরীক্ষা চালানো হলে সংশ্লিষ্ট রোগীর অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৯০ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৮।

হাসপাতালের ডিরেক্টর বিশিষ্ট চিকিৎসক শুভাশীষ মৈত্র বলেন, বাতাস থেকে কনসেনট্রেট করে অক্সিজেন তৈরি করতে পারে এই বিশেষ যন্ত্র। এর জন্য সিলেন্ডার লাগেনা, রিফিল করার কোনো বিষয় নেই। পরীক্ষামূলকভাবে শুক্রবার এক করোনা রোগীকে সফলভাবে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর দিয়ে অক্সিজেন দেওয়া হলো। কিন্তু শুধু একজন রোগীর উপর পরীক্ষা করেই কিছু বলা যাবেনা।

এর পরেও সমস্ত নিরাপত্তা বজায় রেখে প্রায় ১০০ করোনা রোগীকে পরীক্ষামূলক ভাবে এর মাধ্যমে অক্সিজেন দেওয়া হবে।তার পরেই দুর্গাপুর এন আই টি র কাছে রিপোর্ট পাঠানো হবে। তিনি আরও বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে এটা কোনভাবেই ভেন্টিলেটর বা হাই কনসেন্ট্রেশন অক্সিজেনের বিকল্প নয়। আমাদের মনে রাখতে হবে করোনা আক্রান্ত বিপুল সংখ্যক মানুষের মধ্যে মাত্র ১৫% মানুষের অবস্থা ক্রিটিক্যাল হবে এবং তার মধ্যে ৫% মানুষকে ক্রিটিক্যাল ইউনিটে যেতে হবে।

বাকি বিপুল সংখ্যক রোগী, যাদের ৫থেকে ১০ লিটার অক্সিজেন প্রতি মিনিটে দিলেই, তারা সেফহোমে সুস্থ হয়ে উঠতে পারবেন তাদের কাছে এই মেশিন আশীর্বাদ হয়ে উঠতে পারে। তিনি সরকারের কাছে আবেদন করে বলেন, সরকার যদি এই অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের উপর ৮০% সাবসিডিজ দেয় তাহলে, গ্রাম বাংলায় এই মেশিন ছড়িয়ে দেওয়া যাবে।

তার ফলে যে সমস্ত করোনা রোগীদের অল্প মাত্রায় অক্সিজেন লাগবে তাদের সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালে দৌঁড়াতে হবেনা। তিনি আরো জানান, বিদেশে এই ধরনের মেশিন ১ লক্ষ টাকায় কিনতে পাওয়া যায়। কিন্তু সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে দুর্গাপুর এন আই টি পশ্চিমবঙ্গে প্রথম এই অক্সিজেন কনসেনট্রেটর তৈরি করেছে বলে জানা গেছে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা