উলুবেড়িয়ার কৃষিজমিতে চলছে নাড়া পোড়ানো, মাঠে গিয়ে সচেতন করলেন পরিবেশকর্মী

নিজস্ব সংবাদদাতা : চাষের জমিতে ফসলের অবশিষ্টাংশ বা নাড়া পোড়ানোর ফলে কৃষিজমির উর্বরতা যেমন হ্রাস পায় তেমনই বায়ুও ব্যাপকভাবে দূষিত হয়। ফলে কৃষকরা যেমন সমস্যায় পড়েন তেমনই সাধারণ মানুষও এর শিকার হন। নাড়া পোড়ানো বন্ধ করতে ইতিমধ্যেই এগিয়ে এসেছে একাধিক পরিবেশপ্রেমী সংগঠন। বিস্তারিত জানতে নীচে পড়ুন…

পশ্চিমবঙ্গ সরকার ও বিভিন্ন পরিবেশপ্রেমী সংগঠনের লাগাতার প্রচারের ফলে নাড়া পোড়ানোয় অনেকটা রাশ টানায় পুরোপুরি বন্ধ করা যায়নি। বৃহস্পতিবারই ছিল ফসল অবশিষ্টাংশ পোড়ানো প্রতিরোধ দিবস। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই নাড়া পোড়ানো সম্পর্কে কৃষকদের সচেতন করতে উলুবেড়িয়ার মহিষরেখায় দামোদর সংলগ্ন কৃষিজমিতে গিয়েছিলেন মাধবপুর পরিবেশ চেতনা সমিতির সদস্যরা।

প্রচারে বেরিয়ে এদিনও তারা নাড়া পোড়ানো দেখতে পান। সাথে সাথে সেখানে গিয়ে চাষীদের বোঝান। নাড়া পোড়ানো হলে তাদের জমি কতটা ক্ষতি হতে পারে, কিমবা পরিবেশ কতটা দূষিত হতে পারে সেবিষয়ে তাদের সচেতন করেন। পাশাপাশি, চাষীদের হাতে একটি লিফলেটও তুলে দেন সংগঠনের সদস্যরা। সংগঠনের সম্পাদিকা জয়িতা কুন্তি কুন্ডু বলেন, পরিবেশের স্বার্থে অবিলম্বে নাড়া পোড়ানো পুরোপুরি বন্ধ হওয়া দরকার। বেশ কিছু কৃষক এখনো নাড়া পোড়ান। প্রয়োজন আরও সচেতনতার। সেই কাজেই আমাদের সংগঠন ব্রতী হয়েছে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা