বন্যা মোকাবিলায় তৎপর প্রশাসন, হাওড়ায় নামানো হচ্ছে সেনা

নিজস্ব সংবাদদাতা : ভারী বর্ষণের রেকর্ড পরিমাণ জল ছেড়েছে ডিভিসি। আর তারই জেরে হাওড়া, হুগলী সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় তৎপর প্রশাসন। সূত্রের খবর, বিপর্যয় মোকাবিলায় হাওড়ায় দু’কলাম সেনা নামানো হচ্ছে। পাশাপাশি, তৈরি রাখা হচ্ছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী ও এসডিআরএফের দলকে৷ বিস্তারিত আরও পড়ুন নীচে

উল্লেখ্য, হাওড়া জেলার উদয়নারায়ণপুর ও আমতা-২ ব্লকের বিস্তীর্ণ অঞ্চল ডুবতে পারে এমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই শুরু হয়েছে প্রশাসনিক তৎপরতা। বৃহস্পতিবার বিকালে উদয়নারায়ণপুর বিডিও অফিসে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন হাওড়া জেলার অতিরিক্ত জেলা শাসক (ডেভলপমেন্ট) রজত নন্দা, উলুবেড়িয়ার মহকুমা শাসক শমীক কুমার ঘোষ, উদয়নারায়ণপুরের বিডিও প্রবীর কুমার শীট, উদয়নারায়ণপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুলেখা পাঁজা সহ অন্যান্যরা।

এদিন বিকাল থেকেই উদয়নারায়ণপুরের বিভিন্ন গ্রামে পুলিশ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়। উদয়নারায়ণপুর ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় আপাতত ব্লক অফিসের সরকারি কর্মীদের সমস্ত ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই উদয়নারায়ণপুরের জন্য প্রস্তুত রাখা হচ্ছে ২০ টি নৌকা। আগাম প্রস্তুতি হিসেবে উদয়নারায়ণপুর ব্লকের ৪০ টি স্কুল খুলে দেওয়া হয়েছে এবং শিশুদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ বেবি ফুড মজুত রাখা হচ্ছে। একই চিত্র আমতা-২ ব্লকেও।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলাশাসকের সাথে ভিডিও কনফারেন্স করেন আমতার বিধায়ক সুকান্ত কুমার পাল। তারপর আমতা-২ ব্লক অফিসে একটি উচ্চপর্যায়ের প্রশাসনিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন উলুবেড়িয়ার মহকুমাশাসক শমীক কুমার ঘোষ, আমতার বিধায়ক সুকান্ত কুমার পাল, আমতা-২ ব্লকের বিডিও মাসুদুর রহমান, আমতা-২ পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেন মিদ্দ্যা সহ অন্যান্যরা। আমতা-২ ব্লক প্রশাসনের তরফে সমস্ত রকম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা