দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে কয়েকদিনের মধ্যেই খুলতে চলছে বাকসি ব্রীজ

নিজস্ব সংবাদদাতা : দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে কয়েকদিনের মধ্যেই খুলতে চলছে বাকসি ব্রীজ। শনিবার ব্রীজের শেষ পর্যায়ের মেরামতির কাজ পরিদর্শন করেন সুপারেনটেনডেন্ট ইন্জিনিয়ার অপূর্ব ভৌমিক, এক্সিকিউটিভ ইন্ঞিনিয়ার অনিল সিং ও আমতা ২ নং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল ও বরাত প্রাপ্ত সংস্থা ম্যাকেনটস বার্নের আধিকারিকরা। পরিদর্শনের পর, কয়েকদিনের মধ্যেই ব্রীজ খুলে দেওয়া হবে বলে জানান সুকান্ত পাল। ২০০৬ সালে দামোদর ও রূপনারায়ণ নদের সংযোগস্থলে গাইঘাটা খালের উপর তৈরি হয়েছিল ৩৫৩ মিটার লম্বা এই সেতু। সেতুর উদ্বোধনের বছর দুয়েকের মধ্যেই ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়ে, জলের তোড়ে ব্রীজের সাতটি থামের মধ্যে পি ৩ ও পি ৪ থাম দুটি বসে যায়।

তার পর থেকেই ব্রীজটিকে বিপদজনক ঘোষণা করে ভারী যানচলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। তার পরেও নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে মালবাহী ট্রাক চলাচল করায় সেতুর মুখে আড়াই মিটার উচ্চতার লোহার ব্যারিকেড লাগিয়ে দেওয়া হয়। ২০১৮ সালে এই ব্রীজের সংস্কারের কাজ শুরু হয়। সেই কাজ প্রায় সম্পন্ন হ‌ওয়ার মুখে। তার পরেই কয়েকদিনের মধ্যেই পাকাপাকি ভাবে খুলতে চলেছে বাক্সি ব্রীজ। আমতা ২ নং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল বলেন হাওড়া জেলার দ্বীপাঞ্চল ভাটোরা, ঘোড়াবেড়িয়া, চিৎনান সহ পার্শ্ববর্তী কাশমুলী ও ঝামটিয়া এলাকার প্রায় সত্তর হাজার মানুষের যাতায়াতের মূল ভরসা এই ব্রীজ। ব্রীজটি চালু হয়ে গেলে দ্রুত কুলিয়া ঘাট থেকে বাস পরিষেবা চালু করা হয়। দীর্ঘদিনের সমস্যার হাত থেকে মুক্তি পাবেন এই সমস্ত এলাকার মানুষ।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা