আমতার যুবকের ‘হাত’ ফেরালেন বাগনানের চিকিৎসক

নিজস্ব সংবাদদাতা : একদিন পরই বাবার বাৎসরিক কাজ। তারই আয়োজনের জন্য আমতা বেড়িয়েছিলেন সোনামুই গ্রামের বছর আটত্রিশের যুবক সৌমেন মেউর। কিন্তু হঠাৎই একটা দুর্ঘটনা সবকিছু ওলটপালট করে দিল। দুর্ঘটনার আঘাত এতোটাই গুরুতর যে হাতটাই বাদ দিতে হত। এরকমই এক পরিস্থিতিতে বিশিষ্ট সার্জেন সুদীপ্ত মল্লিকের প্রচেষ্টায় ‘হাত’ ফিরে পেলেন আমতার ওই যুবক।

সূত্র মারফত জানা গেছে, গত দু’দিন আগে সোনামুই থেকে আমতা যাচ্ছিলেন সৌমেন মেউর। কলাতলার কাছে লরির সাথে সৌমেনের সংঘর্ষ হয়। গুরুতর অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে আমতা গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে উলুবেড়িয়ায় স্থানান্তরিত করা হয়। ততক্ষণে পচন ধরতে শুরু করেছে ওই যুবকের ক্ষতবিক্ষত হাত৷ সাথে তীব্র যন্ত্রণা। এই অবস্থায় বিশিষ্ট সার্জেন সুদীপ্ত মল্লিকের শরণাপন্ন হন রোগীর পরিচিতরা। রোগীকে দ্রুত অপারেশন করতে হবে বলে জানান সুদীপ্ত বাবু।

সেই মোতাবেক বাগনানের এক বেসরকারি হাসপাতালে রোগীকে ভর্তি করা হয়। অবশেষে সোমবার দীর্ঘক্ষণ ধরে অপারেশন করে পচন ধরা থেকে সৌমেনের হাতকে বাঁচান বাগনানের নুন্টিয়ার বাসিন্দা সুদীপ্ত মল্লিক। চিকিৎসক সুদীপ্ত মল্লিক জানান,”দুর্ঘটনার জেরে যুবকের হাত ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। পচন ধরতে শুরু করেছিল। এই অবস্থায় অপারেশন করি। আপাতত বিপদমুক্ত।” নিজের হাত ফিরে পেয়ে খুশি বছর সাঁইত্রিশের সৌমেন।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা