পনেরোটি বিষয়ে মাস্টার ডিগ্রি! বাগনানের শিক্ষকের ঝুলিতে অনন্য কীর্তি

নিজস্ব সংবাদদাতা : একটা কিমবা দুটো নয়, পনেরোটি বিষয়ে স্নাতকোত্তর! শুনতে বিস্ময়কর মনে হলেও তা-ই বাস্তবে করে দেখিয়েছেন বাগনানের টেঁপুর নবাসন অনন্তরাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরাজির শিক্ষক রঞ্জিত দাস। আর তার এই কীর্তি ইতিমধ্যেই জায়গা করে নিয়েছে ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডর্সে। সম্প্রতি ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডসের পক্ষ থেকে রঞ্জিত বাবুর কীর্তিকে মান্যতা দিয়ে শংসাপত্র, মেডেল সহ অন্যান্য উপহার সামগ্রী পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, জন্মসূত্রে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাঁতনের বাসিন্দা হলেও পেশাগত কারণে বাগনানেই থাকেন রঞ্জিত দাস। ১৯৯৪ সাল থেকে ২০২০ সালের মধ্যবর্তী সময়ে মোট ১৫ টি বিষয়ের উপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেছেন রঞ্জিত বাবু৷ এতেই তিনি থেমে থাকেননি। পাশাপাশি, একাধিক বিষয়ে পিএইচডি, এমফিল ও ডিপ্লোমাও করেছেন। রঞ্জিত দাস জানান, তিনি ইতিমধ্যেই বাংলা, ইংরেজি, দর্শন, দূরশিক্ষা তত্ত্ব, ইতিহাস, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, সমাজতত্ত্ব, জনপ্রশাসন, গ্রামোন্নয়ন, জেন্ডার অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট স্টাডিস, গান্ধী এন্ড পিস স্টাডি এবং ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিষয়গুলিতে মাস্টার ডিগ্রি করেছেন।

পাশাপাশি, তিনি দূরশিক্ষাতত্ত্ব বিষয়ে নেতাজি সুভাষ মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করেছেন। এবার তাঁর এই কীর্তিকে সম্মান জানালো ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ। রঞ্জিত বাবুর কথায়, শিক্ষার কোনো শেষ নেই। আমার এই জ্ঞানকে সমাজের স্বার্থে কাজে লাগাতে চাই। এমনকি অবসর জীবনেও পড়াশোনা করে যেতে চাই। তাঁর এহেন বিস্ময়কর কীর্তিকে সম্মান জানাতে শুক্রবার ফুল, উত্তরীয়, উপহার নিয়ে রঞ্জিত বাবুর বাড়িতে পৌঁছে যান বাগনান-১ পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ চন্দ্রনাথ বসু। চন্দ্রনাথ বসু জানান, রঞ্জিত বাবু বাগনানের গর্ব। তাঁর এই কীর্তিতে আমরাও গর্বিত। কথায় আছে, ইচ্ছে থাকলে কী না হয়! আর তা-ই আবারও প্রমাণ করলেন পঞ্চাশোর্ধ্ব রঞ্জিত দাস।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা