উলুবেড়িয়ার দু’ই তরুণ তুর্কি করোনা যোদ্ধাকে কুর্নিশ জানালো জামবেড়িয়ার মানুষ

নিজস্ব সংবাদদাতা : দেশজুড়ে করোনার বিরুদ্ধে দিনরাত এক করে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ সহ কয়েক লক্ষ যোদ্ধা। কিন্তু, তারপরও তাদেরকে বহুক্ষেত্রে হেনস্থার শিকার হতে হচ্ছে। ডিউটি করে বাড়ি ফেরার পর কোথাও বাড়ি ঢুকতে বাধা দিচ্ছেন স্থানীয়রা আবার কোথাও বা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির পরিবারকেই একঘরে করে দিচ্ছে ‘অবুঝ’ সমাজ।

তবে এবার সম্পূর্ণ উল্টো ছবি দেখা গেল গ্রামীণ হাওড়ার উলুবেড়িয়া-১ ব্লকের জামবেড়িয়া গ্রামে। কোনো আপত্তি, হেনস্থা কিমবা একঘরে করে রাখা নয়, দীর্ঘ দু-মাস করোনা যুদ্ধে লড়াই চালিয়ে বাড়ি ফেরার পথে দু’ই যোদ্ধাকে সম্মান জানাল জামবেড়িয়া শক্তি সংঘের সদস্যরা। এই অভিনব ঘটনারই সাক্ষী থাকল জামবেড়িয়া গ্রামের কয়েকশো মানুষ।

জানা গেছে, উলুবেড়িয়ার জামবেড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা অঞ্জন খাঁ ও কোটালঘাটার অতনু মাইতি রেডিওগ্রাফার হিসাবে ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতালে কর্মরত। কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে গত ২২ শে মার্চ থেকে নিরন্তরভাবে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন এই দু’ই তরুণ তুর্কি। অবশেষে আজ ১ মাসের ছুটি মেলায় দু’জনেই গ্রামে ফেরেন। বাড়ি ফেরার পথে জামবেড়িয়া শক্তি সংঘের তরফে উত্তরীয়, স্মারক ও পুষ্পস্তবকে বরণ করা হয় দু’ই স্বাস্থ্যকর্মীকে।

উদ্যোক্তাদের কথায়, “দেশজুড়ে এই মহামারীর পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে অঞ্জন, অতনুদের মতো মানুষরা যেভাবে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তা সমাজের বুকে এক অনন্য প্রেরণা ও দৃষ্টান্ত। এই অদম্য লড়াই পথ দেখাচ্ছে করোনাকে জয় করার পথ দেখাচ্ছে। তাঁদের এই লড়াইকে কুর্নিশ জানাতেই আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।” গ্রামের সংগঠন থেকে এহেন সম্মান পেয়ে স্বভাবতই খুশি ওই দু’ই যুবক। প্রশাসনের নিয়মানুযায়ী আগামী ১৪ দিন হোম কোয়ারান্টাইনে থাকবেন বলেই জানিয়েছেন ওই দু’ই করোনা যোদ্ধা।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা