কন্যাশ্রী দিবসে উলুবেড়িয়া আশাভবনের বাসন্তী ও শম্পাকে বিশেষ সম্মান রাজ্য সরকারের

নিজস্ব সংবাদদাতা : ছোটো থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন। বাড়িতেও অভাব নিত্যসঙ্গী।তবুও মনে অদম্য ইচ্ছে। সে ইচ্ছে এগিয়ে চলার। সে ইচ্ছে সমস্ত প্রতিবন্ধকতার বেড়াজালকে অতিক্রম করে নিজেকে সমাজের বুকে প্রতিষ্ঠিত করার।

সেরকমই এক অপ্রতিরোধ্য লড়াইয়ে সামিল হয়েছে পুরুলিয়ার বাসন্তী কুমার ও উত্তর ২৪ পরগণা শম্পা হালদার। তাদের লড়াইয়ে সঙ্গী হয়ে এগিয়ে এসেছে গ্রামীণ হাওড়ার আশা ভবন সেন্টার। শারীরিকভাবে বিশেষ সক্ষম এই দু’ই কন্যা আশা ভবনে থেকেই আগামীর স্বপ্ন বোনার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রতিবন্ধকতার বেড়াজালকে সগর্বে ছিন্ন করে এবার মাধ্যমিকে উত্তীর্ণ হয়েছে এই দু’ই ছাত্রী। তাদের এই হার না মানা লড়াইকে কন্যাশ্রী দিবসে সম্মান জানাল পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নারী ও শিশুবিকাশ ও সমাজ কল্যাণ দপ্তর।

আজ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উলুবেড়িয়া-২ ব্লকের কন্যাশ্রী আধিকারিক আশা ভবনে এসে শম্পা ও বাসন্তীকে কন্যাশ্রী পুরস্কারে পুরস্কৃত করেন। আশা ভবনের ডিরেক্টর জন মেরি বাড়ুই বলেন, “শম্পা ও বাসন্তীর সম্মানে আমরা আনন্দিত ও গৌরবান্বিত।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা