নিজের কলমের মাধ্যমেই সুন্দরবনের আম্ফান বিধ্বস্ত মানুষের পাশে এগিয়ে এলেন উলুবেড়িয়ার যুবক

নিজস্ব সংবাদদাতা : মালালা ইউসুফজাইয়ের ভাষায়, “A pen can change the world”।মানবসভ্যতার অন্যতম অস্ত্র কলম গর্জে উঠেছে অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে, কখনো ব্যক্ত করেছে প্রেমিকের হৃদয়ের সুপ্ত ভালোবাসাকে আবার কখনো কলম ত্রাতা হয়ে অসহায়, বুভুক্ষু, বিধ্বস্ত, বিপন্ন মানুষের পাশে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কলমে ভরসা রেখেই এবার সুন্দরবনের আম্ফান বিধ্বস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর লক্ষ্যে এগিয়ে এলেন গ্রামীণ হাওড়ার উলুবেড়িয়ার বেলে সিজবেড়িয়ার বাসিন্দা সেখ ওয়াশিম।

ছাত্রজীবন থেকেই লেখাকে নিজের সঙ্গী করেছেন। লেখার প্রতি অগাধ নিষ্ঠা এবং ভালোবাসা আজ তাঁকে লেখক হিসাবে সমাজের বুকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। তাঁর গুণমুগ্ধ ভক্তরা তাঁর থেকে প্রায়শই লেখার আব্দার করেন। বিনামূল্যেই তিনি নিজের লেখা গল্প, কবিতা কিমবা লিরিক্স দিয়ে দেন। কিন্তু, এবার আর তা বিনামূল্যে দিতে রাজি হননি ওয়াসিম। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি শর্ত রেখেছিলেন নূন্যতম ১ টাকা দিতেই হবে তাঁর লেখা পেতে হলে। মাত্র দু’দিনে অভূতপূর্ব সাড়া পড়ে ওয়াসিমের এই আহ্বানে।

কলমের মধ্য দিয়ে উপার্জিত সেই অর্থ সুন্দরবনের আম্ফান বিধ্বস্ত মানুষের স্বার্থে তিনি তুলে দিলেন আমতার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘স্বপ্ন দেখার উজান গাঙ’-এর হাতে। জানা গেছে, আগামী সপ্তাহেই বিপুল পরিমাণ মুদিখানাসামগ্রী ও শিক্ষাসামগ্রী নিয়ে আমতার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটির সদস্যরা দক্ষিণ ২৪ পরগণার সাগর ব্লকের প্রত্যন্ত দ্বীপে পৌঁছাবেন। পেশায় ব্যবসায়ী ওয়াসিমের কথায়, “লকডাউন আর আম্ফানের গেরোয় বিধ্বস্ত বহু মানুষ। সাধ্যমতো চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি মানুষের পাশে দাঁড়াতে। লকডাউনের জেরে নিজের ব্যবসাও দীর্ঘদিন প্রায় বন্ধ। তাই মানুষের পাশে দাঁড়াতে কলমের সাহায্য নিয়েছি।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা