ভোটারদের উৎসাহিত করতে বাগনানে প্রচারে নামলেন বৃহন্নলারা, অভিনব উদ্যোগ প্রশাসনের

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঊর্মিলা, সুবর্ণা, লিজারা পেশাগত কারণে জেলার গ্রাম থেকে শহর, অলি থেকে গলি নিয়মিত ঘুরে বেড়ান। এবার ভোটের আগে ভোটারদের ভোটাদানে উৎসাহিত করতে মনি, সুবর্ণাদের মতো তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের ময়দানে নামিয়ে অভিনব উদ্যোগ নিল হাওড়া জেলা প্রশাসন। ই ভি এম মেশিনে বোতাম প্রেস থেকে শুরু করে, ভিভিপ্যাট মেশিনে নিজের ভোট সঠিক পড়েছে কিনা তা দেখে নেওয়ার সমস্ত বিষয় বুঝিয়ে দিতে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাচ্ছেন বৃহন্নলারা।

সিস্টেমেটিক ভোটার এডুকেশন এন্ড ইলেকট্ররাল পার্টিসিপেশন সংক্ষেপে সিভপের (SVEEP) এহেন অভিনব কর্মসূচিতে বৃহস্পতিবার গ্রামীণ হাওড়ার বাগনান এন ডি ব্লকের বেশ কয়েকটি বাড়িতে গিয়ে মহিলা ভোটাদের সঙ্গে কথা বলেন ঊর্মিলারা। ভোটদান প্রক্রিয়া সম্বন্ধে ভোটারদের সচেতন করেন তারা। গত কয়েকদিন আগেই বাগনান-১ ব্লকে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের নিয়ে প্রশিক্ষণ শিবির আয়োজন করেছিল সিভপ। সেখানেই উর্মিলা ও মনিরা প্রশিক্ষনে অংশগ্রহণ করে। প্রশিক্ষণ নেবার সাথে সাথেই তারা প্রচারের ময়দানে ‌‌নেমে পড়েছেন।

সিভপের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক সোফিয়া আব্বাস জানান, “হাওড়া জেলায় প্রায় দু’শোর কাছে তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন। আমরা হাওড়া জেলা নোডাল এ ডি এম দিব্যা লঙ্গনাথনের সহায়তায় ও তাঁর পরিকল্পনায় সমাজের বিভিন্ন স্তরের ভোটারদের ভোটদান কর্মসূচিতে সামিল ও সচেতন করতে উদ্যোগী হয়েছে। এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন ট্রান্সজেন্ডাররা। কারণ, তাঁরা বিভিন্ন এলাকা খুব ভালো চেনেন।”

তিনি বলেন, “ইতিমধ্যেই প্রতিবন্ধী মানুষ ও নতুন ভোটারদের নিয়ে আমরা উলুবেড়িয়ার একটি আবাসিক প্রতিষ্ঠানে সচেতনতা শিবির করেছি।” বাগনান এনডি ব্লকে ভোটদান সম্পর্কে ভোটারদের সচেতন করার ফাঁকে বৃহন্নলা মনি মন্ডল বলেন,”আমরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষকে বলছি আপনি ইভিএম মেশিনে ভোট দেবার পর ভি ভি প্যাট মেশিনে দেখে নিন আপনার ভোট সঠিক জায়গায় পড়েছে কিনা।” ঊর্মিলা বলেন,”এই বৃহৎ কর্মসূচিতে সামিল হতে পেরে আমরা খুব খুশি।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা