পরিবেশ বান্ধব পুজো আয়োজন করে নজির গড়তে চলেছে শ্যামপুর থানার বাছরী যুব সংঘ

নিজস্ব সংবাদদাতা : হাওড়া জেলার শ্যামপুর থানায় দুর্গাপূজা গুলির মধ্যে সেরা চমক বাছরী যুব সংঘের দুর্গাপূজায়। এই বছর ৫৩ তম বর্ষে বাছরী যুব সংঘের ভাবনায় রয়েছে এক নতুনত্ব ও অভিনবত্বের ছোঁয়া।এবছর তারা পরিবেশবান্ধব পূজার আয়োজন করে শ্যামপুর থানা তথা হাওড়া জেলার মধ্যে নজির গড়তে চলেছে। বিশ্ব ভুবনকে দূষণ নামক অসুর গ্রাস করতে চলেছে তখন দূষণ ও প্লাস্টিকাসুরকে বধ করতে বাছরী যুব সংঘে মা আসছেন সম্পূর্ন পরিবেশবান্ধব রেশমী সুতোর সাজে।এবং পূজা মন্ডপ ভাবনায় রয়েছে বীর শহীদদের স্মৃতি চারনায় ভারতের ঐতিহ্যবাহী দিল্লির লালকেল্লা। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মৃৎশিল্পী ধীমান মাইতির হাতে রেশমী সুতা দ্বারা নির্মিত হচ্ছে মাতৃ প্রতিমা, যা কোন প্লাস্টিক বা ধাতব উপাদান দ্বারা নির্মিত নয়। পূজা মন্ডপ দায়িত্বে আছে শ্যামপুর থানার অন্যতম সেরা মণ্ডপ প্রস্তুতকারক গৌতম মন্ডল এবং চতুর্থী থেকে একাদশী পর্যন্ত থাকছে আলোকসজ্জার মনমুগ্ধকর, রঙিন, বর্ণময়, চোখ ধাঁধানো আলোর রোশনাই যা মানুষের মনে এক আলাদা অনুভূতির সৃষ্টি করবে।বাছরী যুব সংঘের সম্পাদক শ্রী শিবাপ্রসাদ দাস জানিয়েছেন “আশাকরছি বিগত বছর গুলির মতো এবছর মানুষের ভিড় উপচে পড়বে।” কোষাধক্ষ্য শ্রী গৌতম মুখার্জী জানিয়েছেন “আমাদের এবারের পুজোর বাজেট প্রায় আট লক্ষ টাকার কাছাকাছি” পুজো উদ্যোক্তা শান্তনু বিশ্বাসের কোথায় পুজোর পাশাপাশি তারা বিভিন্ন সমাজ সেবা মূলক কাজ করে থাকেন। তিনি বলেন “এই বছর চতুর্থীর দিন গরীব দুঃস্থ মানুষদের জন্য বিনামূল্যে চক্ষু পরীক্ষা শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে এবং মহা ষষ্ঠী তিথিতে থাকছে এলাকার দুঃস্থ মায়েদের বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান। এই পুজোর শুভ উদ্বোধন চতুর্থী তিথির পুনঃ লগ্নে।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা