শ্যামপুরে কংগ্রেসের প্রার্থী কে? জল্পনা তুঙ্গে

নিজস্ব সংবাদদাতা : সপ্তাহ দু’ই পরেই বাংলায় প্রথম দফায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। হাওড়া জেলায় ভোটগ্রহণ পর্ব এখনো বেশ কিছুদিন বাকি থাকলেও ইতিমধ্যেই তৃণমূল কংগ্রেস পূর্ণাঙ্গ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে। বামফ্রন্টও হাওড়া জেলার বিভিন্ন আসনে নিজেদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে দিয়েছে। সংযুক্ত মোর্চার তরফে হাওড়া জেলায় একাধিক আসন কংগ্রেস ও আইএসএফকে ছাড়া হয়েছে।

সূত্রের খবর, হাওড়ার ১৬ টি বিধানসভার মধ্যে চারটি আসনে এবার কংগ্রেস প্রার্থী দিচ্ছে। আসনগুলি হল হাওড়া মধ্য, উদয়নারায়ণপুর, আমতা ও শ্যামপুর। সূত্রের খবর, এই চারটি আসনের মধ্যে হাওড়া মধ্য আসনটির সম্ভাব্য প্রার্থী জেলা কংগ্রেস সভাপতি পলাশ ভান্ডারী, উদয়নারায়ণপুরের জন্য অলোক কোলে, আমতা কেন্দ্রের জন্য বিধায়ক তথা প্রদেশ কংগ্রেস সহ-সভাপতি অসিত মিত্রের নাম মোটামুটি স্থির হয়েছে বলে জানা গেছে।

কিন্তু, শ্যামপুর কেন্দ্রের জন্য এখনো নাম স্থির করতে পারেনি কংগ্রেস। উল্লেখ্য, একাধিকবার এই কেন্দ্রে ভূমিপুত্রকে প্রার্থী করার দাবি উঠেছে। এক্ষেত্রে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কাউকে প্রার্থী করার দাবীও উঠছে স্থানীয় মহলে। যেহেতু আইএসএফের সঙ্গে জোট করে ভোটে লড়ছে কংগ্রেস, তাই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কাউকে প্রার্থী করা হলে ভালো ফল হবে বলে মনে করছেন স্থানীয় কংগ্রেস কর্মীরা। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, শ্যামপুরের বেশ কিছু অঞ্চলে এখনো কংগ্রেসের ভালো ভোট রয়েছে।

তার পাশাপাশি বামফ্রন্ট ও আইএসএফের সমর্থনে বেশ ভালো লড়াই দেবে কংগ্রেস। আর তাই কোমড় বেঁধে নেমে পড়েছেন সংযুক্ত মোর্চার কর্মী-সমর্থকরা। ইতিমধ্যেই প্রার্থীর নাম বাদ রেখে দেওয়াল লিখনও শুরু হয়েছে শ্যামপুরের একাধিক জায়গায়। এবিষয়ে হাওড়া জেলা কংগ্রেসের সভাপতি পলাশ ভান্ডারী জানান, “দল যাকে টিকিট দেবে তাকেই সামনে রেখে লড়াই হবে। তবে সমস্ত বিষয়টি উচ্চ নেতৃত্বকে জানানো হয়েছে।”

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা