উলুবেড়িয়ার পুজোয় নারীশক্তির বন্দনা, মন্ডপে শিল্পীর সৃজনশীল ভাবনার প্রতিফলন

নিজস্ব সংবাদদাতা : প্রাচীনকাল থেকেই নারীশক্তির আরাধনায় ব্রতী হয়েছে মনুষ্য জাতি। নারী কখনও জননীরূপে অপত্যস্নেহে নমনীয়, কখনও কালীরূপে প্রলয়ঙ্করী, আবার কখনও দুর্গারূপে দশভূজা হয়ে ত্রিশূল ধরেছেন দুষ্টের দমনে। নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েই এবার পুজোয় নারীশক্তির বন্দনাকে থিম আকারে তুলে ধরছে উলুবেড়িয়ার বানীতলা এন্ট্রি ট্যাক্স পেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন। প্রথিতযশা শিল্পী রমেশ দাসের ভাবনায় গড়ে উঠছে পুজো মন্ডপ। হাতে আর মাত্র কয়েকটা দিন। তাই জোরকদমে মন্ডপসজ্জার কাজ চলছে। বাঁশের থালা, বেতের কুলো, মাটির ভাঁড়ের পাশাপাশি চুলের ফিতা, শাঁখা-পলা সহ বিভিন্ন পরিবেশবান্ধব সামগ্রী মন্ডপ সজ্জায় ব্যবহৃত হচ্ছে। বিস্তারিত জানতে নীচে পড়ুন…

শিল্পীর ভাবনায় ও তুলির টানে যেমন সেজে উঠছে মন্ডপ তেমনই মন্ডপে ব্যবহার করা হচ্ছে অসংখ্য হাতে আঁকা পটচিত্র ও রঙিন কাগজের হাতের কাজ। শিল্পী রমেশ দাসের কথায়, সময় বদলেছে, বদলেছে মানসিকতা। কুসংস্কার ও প্রতিবন্ধকতার বেড়াজালকে ছিন্ন করে আজ নারীরা সমাজের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে সমানভাবে পারদর্শী। তাঁদেরকে সম্মান জানাতেই এই ভাবনা। তিনি জানান, নারীশক্তির বন্দনার পাশাপাশি ভারতবর্ষের ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন শিল্প ও সৃজনশীল ভাবনাকে বিভিন্ন কারুকার্যের মাধ্যমে মন্ডপে তুলে ধরা হচ্ছে। এসব ফুটিয়ে তুলতেই এখন জোরকদমে কাজ চালাচ্ছেন শিল্পী রমেশ দাস ও রাঙামন আর্ট স্কুলের প্রায় তিরিশ জন ছাত্রছাত্রী।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা