উলুবেড়িয়ায় কার্তিকের সততার নজির দেখে আপ্লুত পুলিশ থেকে সাধারণ নাগরিক

নিজস্ব সংবাদদাতা : রাস্তা থেকে টাকা কুড়িয়ে পেয়েও মায়ের অসুখের জন্য ধার করে ওষুধ কিনে কুড়িয়ে পাওয়া টাকার সবটাই থানায় গিয়ে জমা দিয়ে এলেন দুঃস্থ পরিবারের সন্তান কার্তিক ধাড়া। বাড়িতে মায়ের অসুখ। ওষুধ কেনার টাকা নেই। রবিবার সকালে কোনওরকমে ২০০ টাকা জোগাড় করে মায়ের জন্য ওষুধ কিনতে দোকানে গিয়েছিলেন জয়পুর থানার ঝামটিয়ার বছর চব্বিশের যুবক কার্তিক ধাড়া। জয়পুর মোড়ের কাছে ওভারসিজ ব্যাঙ্কের সামনে আসতেই কার্তিক রাস্তায় এক গোছা টাকা পড়ে থাকতে দেখে। টাকার বান্ডিলটা কুড়িয়ে সে গুনে দেখে বান্ডিলে সাড়ে আট হাজার টাকা রয়েছে। প্রথমে কার্তিক আশপাশের সকলের কাছে ওই টাকার দাবিদারকে খোঁজার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু পরক্ষণেই তার মনে হয় সকলেই ওই টাকা নিজের বলে দাবি করতে পারে, আর প্রকৃত যার টাকা সেই হয়তো তা ফেরত পাবে না। কার্তিক নিজে যেমন টাকার অভাবে মায়ের অসুখের জন্য ওষুধ কিনতে পারছে না এই টাকাটাও হয়তো সেরকমই কোনও ব্যক্তির। যিনি হয়তো তাঁর বাবা বা মায়ের চিকিৎসার জন্য এই টাকা নিয়ে বেরিয়েছিলেন। কোনও ভাবে তাঁর টাকা রাস্তায় পড়ে গিয়েছে। তাই কার্তিক ওই টাকাটা প্রকৃত দাবিদারের হাতে ফেরত দেওয়ার জন্যই সোজা জয়পুর থানায় চলে আসেন। সেখানে তিনি পুলিশের হাতে টাকার বান্ডিলটা তুলে দিয়ে বলেন যে ব্যক্তি এই টাকার সম্পর্কে সঠিক তথ্য দিতে পারবেন টাকাটা যেন তাঁকেই দেওয়া হয়। কার্তিকের এই সততার নজির দেখে আপ্লুত হন পুলিশ আধিকারিকরা। তাঁরা কার্তিকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। নুন আনতে পান্তা ফুরোয় এমনই একটি পরিবারের সদস্য কার্তিক। বাবা, মা, ভাই, বোনদের নিয়ে তাঁদের অভাব অনটনের সংসার।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *