উলুবেড়িয়া মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ করে চালু হল পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র

নিজস্ব সংবাদদাতা : উলুবেড়িয়ার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল মহকুমাতে চালু হোক পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র। প্রয়াত সুলতান আহমেদ সাংসদ থাকাকালীন দীর্ঘ সাত বছর ধরে লড়াই চালিয়েছিলেন মহকুমা এলাকায় পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র চালু করার জন্য। তার মৃত্যুর পর তার সহধর্মিণী সাজদা আহমেদ ও তার লড়াইয়ে সিলমোহর দিতে সচেষ্ট হন। অবশেষে সোমবার উলুবেড়িয়া মহকুমা বাসী পেল পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র। আমতা ডাকঘরে দ্বিতলে কাজ শুরু হল পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্রের। সোমবার সূচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে উলুবেড়িয়ার সাংসদ সাজদা আহমেদ বলেন আমতা সহ হাওড়া গ্রামীন জেলার মানুষকে আর পাসপোর্টের জন্য কলকাতায় ছুটতে হবেনা। সুলতান আহমেদ তার লোকসভা এলাকায় পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র চালু করতে চেষ্টা করেছিলেন। আমি সাংসদ হ‌ওয়ার পর সংসদে বিষয়টি তোলার পাশাপাশি বিদেশ মন্ত্রকের সাথেও কথা বলেছিলাম। তার ফলস্বরূপ আজ পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র চালু হল আমতায়। প্রথম দিন‌ই ৫ জনের পাসপোর্টের আবেদন দিয়ে শুরু হল প্রক্রিয়া। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা ও সিকিমের রিজিওনাল পাসপোর্ট আধিকারিক বিভুতিভূষণ কুমার। বিভুতি বাবু বলেন ভারতবর্ষে সর্বমোট ৩৫৫ টি পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্রের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে এটি ৩১ তম। তিনি জানান এই সেবা কেন্দ্র থেকে প্রতিদিন ৪০ জন নাগরিককে পাসপোর্টের বিষয়ে সহায়তা করা হবে। পাসপোর্ট সম্বন্ধীয় যাবতীয় কাজ এখান থেকেই সম্পন্ন করা হবে। তিনি আবেদন জানান নিজের আবেদন নিজে করুন। কোনো দালাল চক্রের ফাঁদে পা দেবেন না। পাশাপাশি পাসপোর্টের আবেদনে সঠিক তথ্য দেওয়ার‌ও আবেদন জানান তিনি। এদিনের এই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন দক্ষিণবঙ্গের পোষ্ট মাষ্টার জেনারেল সঞ্জীব রঞ্জন, রাজ্যের শ্রম দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী নির্মল মাজি, উদয়নারায়নপুরের বিধায়ক সমীর পাঁজা। অনুষ্ঠানের শুরুতে কাশ্মীরের পুল‌ওয়ামায় নিহত জ‌ওয়ানদের উদ্দেশ্যে নিরাবতা পালন করা হয়।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.