গ্রাম্য বিবাদ কে কেন্দ্র করে দুটি গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত উলুবেড়িয়ার বাগগাছা গ্রাম

নিজস্ব সংবাদদাতা :উলুবেড়িয়া- গ্রাম্য বিবাদকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠলো উলুবেড়িয়া ১ নং ব্লকের বহিরা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাগগাছা গ্রাম। এলাকায় ব্যাপক বোমাবাজির পাশাপাশি দুটি বাড়িতে ভাঙচুর করে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ। সংঘর্ষের ফলে আহত রাধা পন্ডিত ও প্রশান্ত ঘোষ উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। জানা গেছে প্রায় এক মাস আগে একটি গ্রাম্য বিবারকে কেন্দ্র করে এলাকার বাসিন্দা পরেশ পন্ডিতের সাথে ঝামেলা বাঁধে প্রতিবেশী নাজু মল্লিকের। স্থানীয় মানুষদের সাহায্যে তখনকার মতো ঝামেলা মিটে গেলেও তার পর থেকেই দুই পক্ষের মধ্যে চাপানউতোর চলছিল। অভিযোগ সেই শত্রুতার জেরে গত মঙ্গলবার রাতে পরেশ পন্ডিতের বাড়িতে হামলা চালায় নাজু মল্লিকের লোকজন। পরেশ পন্ডিত কোনোরকমে সেখান থেকে পালিয়ে গেলে পরেশের বাড়িতে অগ্নিসংযোগের পাশাপাশি তার ভাইপো বিদেশ পন্ডিতের বাড়িতে ভাঙচুর চালায় তারা। বাধা দিতে গেলে ব্যাপক মারধোর করা বিদেশ পন্ডিতের মা রাধা পন্ডিতকে। সাথে চলে ব্যাপক বোমাবাজি। ঘটনার প্রতিবাদ করায় এলাকার যুবক প্রশান্ত ঘোষ কে মেরে হাতে ও পা ভেঙে দেওয়ার পাশাপাশি ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার ও অভিযোগ ওঠে নাজু মল্লিকের দলবলের বিরুদ্ধে। ঘটনার খবর পেয়ে উলুবেড়িয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। আহতদের মধ্যে প্রশান্ত ঘোষের আঘাত গুরুতর বলে জানা গেছে। পরেশ পন্ডিতের অভিযোগ আমরা তৃণমূল করি। নাজু মল্লিক এবং তার দলবল আগে তৃণমূল করলেও মাস খানেক আগে তাকে দল থেকে বহিস্কার করে এলাকার দায়িত্ব আমার হাতে তুলে দেন দলীয় নেতৃত্ব। তার আরও অভিযোগ সেই রাগেই আমাকে প্রানে মেরে ফেলার জন্যই এই আক্রমনের ঘটনা। এলাকার প্রধান শ্যামল করণ এর দাবি ক্ষমতা হারানোর প্রতিশোধ নিতেই এই আক্রমনের ঘটনা। হাওড়া গ্রামীন জেলার তৃণমূল সভাপতি পুলক রায় বলেন এর সাথে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই। এটি নিছক একটি গ্রাম্য বিবাদের ঘটনা। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.