বাগনানের নারিটে সড়ক পথের বেহাল অবস্থা, মেরামতের দাবি এলাকাবাসীর

নিজস্ব সংবাদদাতা : আমতা বেতাই থেকে চলে গেছে বাগনান যাবার রাস্তা। সংস্কারহীন রাস্তাটি পড়ে থাকার পরও সংস্কার না হওয়ায় জনমনে ক্ষোভ সৃষ্টি হচ্ছে।বেতাই থেকে কড়িয়া পর্যন্ত প্রায় ৮ কিলোমিটার রাস্তাটি একেবারে ভগ্ন দশা হয়ে পড়ে আছে।মাঝেমধ্যেই পিচের আস্তরণ উঠে গিয়ে গর্ত হয়ে মরন ফাঁদ তৈরি হয়েছে। আবার তার উপরে রাস্তাই চলছে রমরমিয়ে ইমারতি দ্রব্যের ব্যবসা।আর এই রাস্তা দিয়েই নরক যন্ত্রনা ভোগ করতে করতে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষকে যাতায়াত করতে হচ্ছে। এই রাস্তা মেরামতের দাবি তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দা থেকে নিত্যযাত্রী সকলেই। গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি দিয়ে আমতা-২ নং ব্লকের তাজপুর,নওপাড়া,কুশবেড়িয়া, তাজপুর পঞ্চায়েত সহ বাগনান-১ নং ব্লকের কয়েক হাজার মানুষ নিত্যযাত্রী যাতায়াত করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা থেকে নৃত্যযাত্রী সকলেরই অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তাটি রক্ষনাবেক্ষনের অভাবে ক্রমশই বেহাল অবস্থা হয়ে দাঁড়িয়েছে।অটো ও ম্যাজিক গাড়িই একমাত্র ভরসা এই রুটের যাত্রীদের।বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা থেকে যায়। সন্ধ্যা নামলেই পথ চলা দায় হয়ে পড়ে পথচারীদের। অটো ও ম্যাজিক গাড়ি চললেও রাস্তার দুরবস্থার কারনে সন্ধ্যা নামলেই গড়ি কমে যায়। যাত্রী দুর্ভোগ বাড়ছে।এলাকার বাসিন্দারা জানান, ব্লকের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি দিয়ে এলাকার স্কুল,কলেজ, প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র ছাড়াও বাজার থাকায় প্রচুর মানুষ এই রাস্তা ব্যবহার করে থাকে।

শিশু,অন্তঃসত্ত্বা ও বয়স্কদের এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করা একেবারেই অযোগ্য হয়ে পড়েছে।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক যাত্রী জানান প্রশাসনের অধিকারিরা ঘটনা জানার সত্ত্বেও আজ অবধি সংস্কার করার উদ্যোগ নেই নি।গাজিপুরের বাসিন্দা সুমিত ভট্টাচার্য বলেন,অটোয় করে যাতায়াত করার সময় একটা বিপদের আশঙ্কা নিয়েই এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। অবিলম্বে রাস্তাটি সারানোর প্রয়োজন বলে দাবি করেন তিনি।এ সম্পর্কে আমতা-২ নং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল জানান, রাজ্য সরকারের পূর্ত দফতরে আবেদন করেছি রাস্তাটি নতুনভাবে তৈরি করার জন্য। পরিকল্পনাও তৈরি হয়ে গিয়েছে। বর্ষার পরেই কাজ শুরু হবে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *