অদ্ভুত সমাপতন! ‘বন্ধু’ ফিদেল কাস্ত্রোর মৃত্যুদিনেই চলে গেলেন মারাদোনা

নিজস্ব সংবাদদাতা : মাসটা ২০১৬ সালের নভেম্বর। তারিখটা ২৫। অজস্র মানুষকে কাঁদিয়ে সেদিন ঘুমের দেশে পাড়ি দিয়েছিলেন কিউবার অবিসংবাদী নেতা, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ফিদেল কাস্ত্রো। সেদিন তাঁর চলে যাওয়ায় কার্যত ভেঙে পড়েছিলেন বিশ্ব ফুটবলের কিংবদন্তি দিয়েগো মারাদোনা।

সেদিন শোকে মুহ্যমান মারাদোনা বলেছিলেন, “আমার দ্বিতীয় বাবাও চলে গেল, এবার কার কাছে যাব?” ফিদেল কাস্ত্রোর মৃত্যুর ঠিক চার বছর পর ২০২০ সালের ২৫ শে নভেম্বরেই চলে গেলেন দিয়েগো মারাদোনা। কিউবা ও আর্জেন্টিনা— আমেরিকার চক্ষুশূল দুটি দেশ। আমেরিকার মতো ধনী দেশের চোখ রাঙানিকে উপেক্ষা করে মাথা উঁচু করে দশকের পর দশক ধরে লড়াই চালিয়ে গেছেন কিউবার কমিউনিস্ট নেতা ফিদেল কাস্ত্রো।

ফিদেলের সাথে মারাদোনার ছিল আত্মিক যোগ।বন্ধুত্ব ছিল নিবিড়। সেই নিবিড়তা মারাদোনাকে ক্রমশ ধনতান্ত্রিক শাসকের বিরুদ্ধে বীতশ্রদ্ধ করেছে। তাই বারবার ধনতান্ত্রিক শাসকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সরব হয়েছেন ফুটবলের রাজপুত্র। সময়ের কী অদ্ভুত সমাপতন! একজন অপরজনকে গভীরভাবে ভালোবাসতেন, শ্রদ্ধা করতেন। অদ্ভুতভাবে একই দিনে মাত্র চার বছরের ব্যবধানে চলে গেলেন পৃথিবীর দুই ভিন্ন ক্ষেত্রের কিংবদন্তি।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা