অবাক কান্ড! দৌড়ে দার্জিলিংয়ের পথে হাওড়ার যুবক

নিজস্ব সংবাদদাতা : দিন আনা দিন খাওয়া পরিবারে কোনোরকমে সংসার চলে। তার মধ্যেই ছোটো থেকেই সৈনিক হওয়ার স্বপ্ন দেখা। সেই লক্ষ্যেই ছোটো থেকে দৌড়ানো শুরু। এবার দৌড়েই দার্জিলিংয়ের পথে পাড়ি দিল হাওড়ার যুবক রাজকুমার গৌড়। বুধবারই ডোমজুড়ের ডাঁসী সাঁতরাপাড়ার নিজের বাড়ি থেকে দার্জিলিংয়ের উদ্দেশ্যে দৌড় শুরু করেছেন বছর কুড়ির রাজকুমার। রাজকুমার জানিয়েছে, প্রত্যেক দিন কমপক্ষে ১০০ কিমি পথ দৌড়ানোর লক্ষমাত্রা সে নিয়েছে। প্রথমদিন রাত কাটায় নবদ্বীপ স্টেশনে। সেখান থেকে বহরমপুর, মালদা, শিলিগুড়ি হয়ে দার্জিলিং পৌঁছাবে রাজকুমার। দার্জিলিংয়ে দু-একদিনের বিশ্রাম নিয়ে সে আবার বাড়ির পথে একই রুটে ফিরতি দৌড় শুরু করবে। ছোটো থেকেই সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার স্বপ্ন রাজকুমারের। বরাবরই দৌড়ে সে পারদর্শী। বিস্তারিত জানতে নীচে পড়ুন...

দৌড়ের পাশাপাশি ইতিমধ্যেই ক্যারাটেতেও ব্ল্যাকবেল্ট অর্জন করেছে। দৌড়ের নেশায় হাওড়ার গ্রামের বাড়ি থেকে কখনো রাজকুমার বেরিয়ে পড়ে তারাপীঠ কিংবা ঝাড়খন্ডে। এবার তার গন্তব্য দার্জিলিং। প্রথমবারের জন্য শৈলশহরে পা রাখবে সে। চলতি বছরের জানুয়ারী মাসেই দার্জিলিং যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় রাজকুমার। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়ায় অর্থ। দিন এনে দিন খেয়ে কোনোরকমে সংসার চলে। অর্থাভাবে যখন তার দার্জিলিং সফর কার্যত বন্ধের মুখে তখন কেউ জুতো কিনে দিয়ে, আবার কেউ নগদ অর্থ সাহায্য করে এগিয়ে আসেন। রাজকুমারের কথায়, দৌড় আমার বরাবরের নেশা। বাংলার মানুষ শারীরিকভাবে কতটা ফিট, সেটা দেখাতেই সাইকেল কিংবা হেঁটে নয়, দৌড়ে দার্জিলিং যাচ্ছি। তার কথায়, আমার লক্ষ্য অলিম্পিকে দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করা ও ভারতীয় সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়া। এই সফরে দৌড়ের মাধ্যমে তারও অনুশীলন হয়ে যাবে।

Author: নিজস্ব সংবাদদাতা